আর্নিং

আমাদের দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতার আলোকে কিছু মার্কেটপ্লেস ও অর্নিং মেথড নিয়ে এখানে আলোচনা করা হল। নতুন নতুন অভিজ্ঞার ভিত্তিতে আমরা এই পেইজটি নিয়োমিত আপডেট করে থাকি। ——- সর্বশেষ আপডেট ২৩ জুলাই ২০২১ ইং

১। ফোরার : এই মার্কেটপ্লেসে ৪-২০০ ডলারের কাজ সাবমিট করতে পারবেন। ছোট ছোট বাজেটের প্রজেক্ট হলে এই মার্কেটে আমরা অনেক কাজ পেয়েছি যা বেশ বড় বাজেটের।

২। এসইও ক্লার্ক: এসইও ক্লার্ক তাদের ওয়েবসাইটে বেশ কিছু পরিবর্তন নিয়ে এসেছে। আপনার প্রফাইল লেভেল বাড়াতে পারলে ১ ডলার থেকে ১ হাজার ডলারের কাজ সাবমিট করতে পারবেন। ছোট ছোট প্রজেক্টের কাজের জন্য এই মার্কেটপ্লেসটি বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে।

৩। পিপলপার আওয়ার: আওয়ারলী কাজের জন্য জনপ্রিয় এই মার্কেটপ্লেসেও প্রচুর কাজ পাওয়া যাবে।

৪। ফাইবার: ৫ ডলারের কাজের জন্য জনপ্রিয় এই মার্কেটপ্লেসে প্রচুর কাজ রয়েছে। এই মার্কেটপ্লেসে প্রতিদিন অসংখ্য বায়ার আসে তাদের কাজ নিয়ে। প্রফেশনাল কাজের জন্য এই মার্কেটপ্লেসটি হতে পারে অন্যতম একটি আর্নিং সোর্স।

৫। এনিটাক্স: মাইক্রোফিল্যান্সিং এর জন্য জনপ্রিয় এই মার্কেটপ্লেসটিতে কাজের অভিজ্ঞতা আপনাকে ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারে পূর্ণতা এনে দেবে। এই মার্কেটপ্লেসটিতে কোন প্রকার স্ক্যামিং প্রজেক্ট সাবমিট করা যাবে না। বায়ারদের জন্য তাই এই মার্কেটপ্লেস খুবই জনপ্রিয়।

৬। ফ্রিল্যান্সার: ফ্রিল্যান্সার ডট কম প্রফেশনাল ফ্রিল্যান্সিং -এর জন্য অন্যতম একটি মার্কেটপ্লেস। বায়ারদের প্রজেক্টে বিড করার মাধ্যমে কাজ সংগ্রহ করতে হয়।

৭। আপওয়ার্ক: বিশ্বের নাম্বার এক ফ্রিল্যান্স মার্কেটপ্লেস হিসেবে আপওয়ার্ক সুনাম অর্জন করেছে। দক্ষ ও প্রফেশনালদের জন্য আপওয়ার্ক প্রথম পছন্দ। বিশ্বের সেরা সেরা ফ্রিল্যান্সার ও বায়ারদের এই মার্কেটপ্লেসে পাওয়া যাবে।

৮। আপক্লার্কস: মাইক্রোফ্রিল্যার্ন্সিং কাজের জন্য এই মার্কেটপ্লেস ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। ১ সেন্ট থেকে শুরু করে ১০ ডলারের কাজগুলো এই মার্কেটপ্লেসে পাওয়া যাবে।